সারা দেশ ১১তম গ্রেডের দাবিতে উত্তাল

0
154
সারা দেশ ১১তম গ্রেডের দাবিতে উত্তাল
সারা দেশ ১১তম গ্রেডের দাবিতে উত্তাল

সারা দেশ ১১তম গ্রেডের দাবিতে উত্তাল

১১ তম গ্রেড দাবী নয় অধিকার’, ‘আর কোন দাবি নাই, ১১তম গ্রেড চাই’, ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বেতন বৈষম্যের ঠাঁই নাই’। এসব দাবি সম্বলিত ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে সারা বাংলাদেশের প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকরা দীর্ঘদিন যাবত আন্দোলন করে যাচ্ছে।

সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী বারবার আশ্বাস দিলেও শিক্ষকরা তাদের দাবির কোনো বাস্তবায়ন দেখেনি।

গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে প্রাথমিকের সহকারীদের বেতন বৈষম্য নিরসনের বিষয়টি স্থান পায়। নির্বাচন হয়ে গেলো, আওয়ামী লীগ ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গঠন করলো, আমরা সারা বাংলাদেশের প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকরা আশায় বুক বাঁধলাম।

বঙ্গবন্ধু কন্যা, মানবতার ‘মা’ খ্যাত প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দিকে তাকিয়ে রইলাম। আমরা শিক্ষকরা যখন দেখলাম বেতন বৈষম্যের ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সংসদের ভিতরে বাহিরে এখনো কোথাও কোন ঘোষণা দিলেন না, তাই আমাদের বুক ভেঙ্গে গেলো।

আমরা আমাদের অধিকার চাই, আমাদের দাবি যৌক্তিক দাবি। নন-ক্যাডার, সরাসরি পদোন্নতিপ্রাপ্ত ও সদ্য জাতীয়করণকৃত প্রধান শিক্ষকগণ সবাই ১০ম গ্রেডের সুবিধা ভোগ করবেন কিন্তু নন-ক্যাডার ও সরাসরি ব্যতীত অন্যান্য প্রশিগণের বেশির ভাগই HSC যোগ্যতায় পদোন্নতি পেয়েছেন।

অন্যদিকে সহকারীগণ বেশির ভাগই B.A. M.A. পাস সরকার কর্তৃক ঘোষিত। কিন্তু তারা ১১তম গ্রেড পাচ্ছেন না!

বাংলার মাটিতে এমন বৈষম্য রেখে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা বাস্তবায়ন কোনোভাবেই সম্ভব নয়!

সহকারীদের ন্যায্য দাবি ১১তম গ্রেড দিতে হবে, দিতেই হবে এবং তা অবশ্যই অনতিবিলম্বে কার্যকর করে, প্রাথমিকের সকল সহকারী শিক্ষকদের প্রাণের দাবিকে সম্মান দেখিয়ে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করবেন বলে আশা রাখছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here